সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১১ আশ্বিন ১৪২৯
এমন জাহাঙ্গীর হয়তো আরও অনেক আছে ।। মাহবুবুল আলম
নিজস্ব প্রতিবেদক ।। পদক্ষেপনিউজ
Published : Sunday, 21 November, 2021 at 4:43 AM, Count : 231
এমন জাহাঙ্গীর হয়তো আরও অনেক আছে ।। মাহবুবুল আলম

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ উঠেছিল গত সেপ্টেম্বরে। ওই সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ক্লিপ ছড়িয়ে পড়ে। ওই ভিডিওতে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধে শহিদদের নিয়ে জাহাঙ্গীর অবমাননাকর মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ ওঠে।

মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের এমন বক্তব্যে দলের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা বলছেন, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের শহিদদের মীমাংসিত ইস্যু নিয়ে জাহাঙ্গীর আলম ‘বিতর্কিত’ মন্তব্য করেছেন। তার এমন বক্তব্য দলীয় ও মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের পরিপন্থি। এ কারণে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জাহাঙ্গীর আলমের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর তাকে দল থেকে বহিষ্কার ও মেয়র পদ থেকে অপসারণের দাবি জানান গাজীপুর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। টানা কয়েকদিন থেমে থেমে তারা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনও করেন।

এর পর জাহাঙ্গীর আলমকে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী ও সমর্থকেরা। এ ঘটনায় গাজীপুরের রাজনীতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। এ নিয়ে গাজীপুরে মেয়র-সমর্থকদের সঙ্গে বিরোধীদের সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটে কয়েক দফা। ৩ অক্টোবর দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে জাহাঙ্গীর আলমকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। ১৮ অক্টোবরের মধ্যে জাহাঙ্গীরকে এর জবাব দিতে বলা হয়। তিনি জবাবও দেন। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি ‘সুপার এডিট’ করা বলে বারবার দাবি করেন জাহাঙ্গীর আলম।

গত ৩ অক্টোবর তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয় কেন্দ্র থেকে। ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তাকে সে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়। চিঠিতে উল্লেখ করা হয়— সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত ও প্রকাশিত আপনার বক্তব্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সুনাম ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছে, যা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্বার্থ পরিপন্থি কর্মকাণ্ড ও সাংগঠনিক শৃঙ্খলাভঙ্গের সামিল। এটি সংগঠনের গঠনতন্ত্রের ৪৭ ধারা মোতাবেক শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

সময় মতো কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাবও দেন মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। ‘জাহাঙ্গীর চিঠিতে দাবি করেছেন, তার বক্তব্যগুলো জোড়াতালি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। সবশেষে তিনি ক্ষমা চেয়েছেন।’ কিন্তু স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের একাধিক নেতার মত, দলের আদর্শের বিপরীতে দাঁড়িয়ে দেওয়া বক্তব্য নিয়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির বিষয়ে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারকেরাও একমত।

তবে স্থানীয় আওয়ামী লীগ থেকে জাহাঙ্গীরকে বহিষ্কারের দাবি রয়েছে। সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলররাও জানিয়েছেন, জাহাঙ্গীরকে মেয়র পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবিও রয়েছে স্থানীয়দের মধ্যে। শুধু তাই নয় মেয়রের ‘কটূক্তি’ নিয়ে ক্ষোভ বিরাজ করছে গাজীপুর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগণের মধ্যে। এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচার দাবি করে তার ছবির ওপর ‘ক্রস চিহ্ন’ দিয়ে পোস্টার ছাপিয়েও সেগুলো বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় দেয়ালে দেয়ালে লাগানো হয়েছে।

স্থানীয়রা বলছেন, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে আগের অনেক অভিযোগও রয়েছে। সেগুলো নিয়ে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামেও আলোচনা হয়েছে। তবে তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা এখন পর্যন্ত নেওয়া হয়নি। কিন্তু এবারে তিনি বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে মন্তব্য করে সব মাত্রা ছাড়িয়ে গেছেন। এরপর আর তাকে ছাড় দেওয়া উচিত হবে না।

এদিকে ১৯ নভেম্বর ২০২১ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভায় দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে ৮১ সদস্যের কার্যনির্বাহী কমিটির ৪৯ সদস্যকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে এবং সর্বসম্মতিক্রমে গাজিপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বিভিন্ন পত্রিকার খবরে জানা যায়, গাজীপুরে দীর্ঘদিন ধরে মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ক্ষোভ দানা বাঁধছিল। ভিডিও প্রকাশে সেই ক্ষোভের বিস্ফোরণ ঘটে। ত্রিধাবিভক্ত গাজীপুর আওয়ামী লীগ দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে এ ঘটনায়। গাজীপুরের আওয়ামী লীগে একসময় জাহাঙ্গীরের সুহৃদেরাও তাঁর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন। এর পাশাপাশি জাহাঙ্গীরের ভাষায় দলের ‘বিরুদ্ধবাদীরা’তো আছেনই। বড় একাধিক জ্যেষ্ঠ নেতা এবং তাঁদের অনুসারীরা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে এককাট্টা হন। জাহাঙ্গীর আলম স্কুল থেকে কলেজ ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। জেলার ছাত্রলীগ ও পরে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতেও স্থান পান। এরপর গাজীপুরের সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান। মাত্র ৩৯ বছর বয়সে গাজীপুর সিটির মেয়র হন তিনি ২০১৮ সালে।

"নিজের নামে একটি ফাউন্ডেশন করে সমান্তরাল একটি শক্তি সৃষ্টি করেন। তাঁর দেওয়া আর্থিক সুবিধা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের একাধিক নেতাও পান বলে বলা হয়। এমন অবস্থায় বর্ষীয়ান আজমত উল্লার সঙ্গে জাহাঙ্গীরের বিরোধ প্রকাশ্যে আসে ২০১৩ সালে গাজীপুর সিটির প্রথম নির্বাচনের সময়। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের রূপকার ছিলেন আজমত উল্লা। সে বছরে প্রথমবার সিটির নির্বাচন হয়। প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন জাহাঙ্গীর। কিন্তু পারেননি। দল বেছে নেয় আজমত উল্লাকে। নির্বাচনে তিনি হেরে যান। নির্বাচনে জাহাঙ্গীরের ‘প্রশ্নবিদ্ধ’ ভূমিকা নিয়ে দল তখন প্রশ্ন তোলেনি। কিন্তু স্থানীয় আওয়ামী লীগে দূরত্ব সৃষ্টি হয়। এ সময় জাহিদ আহসান রাসেল ছিলেন জাহাঙ্গীরের পক্ষে। স্থানীয় আওয়ামী লীগের নির্বাচন-পরবর্তী এক মূল্যায়ন এমন ছিল, জাহিদ আহসান রাসেল ও জাহাঙ্গীর আন্তরিক হলে সিটি নির্বাচনের ফল ভিন্ন হতে পারত। "( প্রথম আলো ২০ নভেম্বর ২০২১)

শেষ করতে চাই এ বলেই যে, ছাত্রলীগ, যুবলীগ করে দেশের অন্যতম শিল্পাঞ্চল গাজীপুর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকও নির্বাচিত জন জাহাঙ্গীর আলম এবং ২০১৮ সালে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র নির্বাচিত হয়ে যুবসমাজের আইকনে  পরিনত হন তিনি কিন্তু ভাগ্যের কী নির্মম পরিহাস বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিুদ্ধের শহীদদের নিয়ে বিএনপি জামায়াতও বক্তব্য দিতে সাহস করেনি, সেই ধরনের বিতর্কিত মন্তব্য করে জাহাঙ্গীর আলম হঠাৎ করেই  হিরো থেকে জিরো হয়ে গেলেন। আমার কেন জানি মনে এমন জাহাঙ্গীর আলম দলে আরও আছে, যারা সময় ও সুযোগের অপেক্ষায় আছে। এরাও যে কোনো সময় মোস্তাক রূপে আবিভূত হতে পারেন।

এমন জাহাঙ্গীর হয়তো আরও অনেক আছে ।। মাহবুবুল আলম  আজ থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরু : ফখরুলআজ থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হলো বলে সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল
এমন জাহাঙ্গীর হয়তো আরও অনেক আছে ।। মাহবুবুল আলম খালেদার জন্য আনা যাবে বিদেশি চিকিৎসক : আনিসুল হক‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য বিদেশ থেকে যত বড় চিকিৎসক তারা আনতে চায়, তা
এমন জাহাঙ্গীর হয়তো আরও অনেক আছে ।। মাহবুবুল আলম  'জাহাঙ্গীর মেয়র পদে থাকবেন কি না আইন দেখে সিদ্ধান্ত'স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকে
এমন জাহাঙ্গীর হয়তো আরও অনেক আছে ।। মাহবুবুল আলম  সংবাদ সম্মেলনে কাঁদলেন মেয়র জাহাঙ্গীরগাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক ও সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


এই বিভাগরে আরও খবর...
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
একটি ইওজি প্রকাশনা
উপদেষ্টা সম্পাদক : বাদল চৌধুরী || সম্পাদক : জান্নাতুন নিসা
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৮ম তলা (৮০৫), রোজভিউ প্লাজা লিমিটেড
১৮৫ বীর উত্তম সি আর দত্ত রোড, ঢাকা-১২০৫
ফোন : +৮৮০২৯৬৬০৬৭৬, +৮৮০২৯৬৬০৬৭৪, +৮৮০১৫৫৮০২৯৮৩৭, +৮৮০১৬৭১১৩৯৪৩০
e-mail : [email protected], [email protected]
Developed & Maintenance by i2soft
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত পদক্ষেপনিউজ